বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বাংলাদেশ দল: ইমরুল কায়েস আরও একবার ‘দুর্ভাগা’?

507

ক্রিকেট বিশ্বকাপের জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড মঙ্গলবার যে দল ঘোষণা করেছে, তাতে নেই ইমরুল কায়েস।

এর আগে নিউজিল্যান্ড সফরেও বাদ পড়েছিলেন তিনি, তবে পরে সুযোগ পেয়ে তিনি নিউজিল্যান্ডে গিয়ে হয়েছিলেন বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক।মূলত ২০১৮ সালে জিম্বাবুয়ে সফরে ইমরুল কায়েসের পারফরম্যান্সের পর থেকে তিনি আলোচনার কেন্দ্রে ছিলেন।

কিন্তু তারপরেও তাকে কেনো দলে নেয়া হচ্ছে না এ নিয়ে বারবার প্রশ্ন উঠেছে। বিশ্বকাপের দল ঘোষণার পর আরও একবার ওই প্রশ্ন উঠেছে, সমর্থকরা জানতে চাইছেন যে ইমরুল কায়েস আবারও কেন বাদ পড়লেন।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচক হাবিবুল বাশার বিবিসি বাংলার কাছে ইমরুল কায়েসের না থাকার একটি ব্যাখ্যাও দিয়েছেন। আরো পড়ুনঃওয়ানডেতে না খেলেই বিশ্বকাপ দলে আবু জায়েদবাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ-আয়ারল্যান্ড সিরিজের চূড়ান্ত সূচি২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের পূর্ণাঙ্গ সূচিতিনি বলেন, “ইমরুল কায়েস নিঃসন্দেহে দুর্ভাগা, কিন্তু এখানে আমরা সেরাদেরই নিয়েছি।

আরো পড়ুনঃ

ওয়ানডেতে না খেলেই বিশ্বকাপ দলে আবু জায়েদ

বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ-আয়ারল্যান্ড সিরিজের চূড়ান্ত সূচি

২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের পূর্ণাঙ্গ সূচি

এই যেমন লিটন দাস বা সৌম্য সরকার – উভয়েই দ্রুত রান তুলতে পারেন।””বিশ্বকাপের মতো জায়গায় দ্রুত রান তোলাটা গুরুত্বপূর্ণ। এখানে আসলে আমাদের লক্ষ্য মেরে খেলে এমন ক্রিকেটার নেয়া।

“মিনহাজুল আবেদীন নান্নু, যিনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাচক, তিনি মূলত বাম হাত ও ডান হাতের মিশ্রণের দিকে বেশি গুরুত্ব দেন।যেহেতু তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার বাঁহাতি, তাই ইমরুল কায়েস এখানে জায়গা পাননি।এর আগে ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে এনামুল হক জুনিয়রের বদলি হিসেবে বিশ্বকাপ খেলেছিলেন কায়েস

২০১৮ এশিয়া কাপেও বাংলাদেশের দলে পরিবর্তন এনে ইমরুল কায়েসকে দলে নেয়া হয়েছিলো।২০১৮ সালে ইমরুল কায়েসের পারফরম্যান্স কেমন ছিল?

২০১৮ সালে বাংলাদেশের সেরা পাঁচ ব্যাটসম্যানের মধ্যে চার নম্বরে আছেন ইমরুল খেলেছেন ৮টি ওয়ানডে ম্যাচ।

তবে সেরা পাঁচের মধ্যে সর্বোচ্চ স্ট্রাইক রেট তারনিউজিল্যান্ডের মাটিতে ২০১৭ সালের সিরিজের পরিসংখ্যাননিউজিল্যান্ডের মাটিতে ২০১৭ সালে ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন ইমরুল কায়েস।

সেই সিরিজে ইমরুল কায়েস ৩ ম্যাচ খেলে করেন ১১৯ রান, যেখানে তামিম ইকবাল ৩ ম্যাচ ব্যাট করে তুলেছিলেন ১১৫ রান। সাকিব আল হাসান ছিলেন তৃতীয়, ৩ ম্যাচে তার সংগ্রহ ছিল ৮৪ রান।

বিবিসি বাংলা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here